এএনএম নিউজ ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামা অঙ্গরাজ্যের ম্যাকন কাউন্টিতে ১৯৩২ থেকে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত প্রায় ৪ দশক ধরে চলেছিলো একটি পরীক্ষা। এ পরীক্ষায় সেখানকার সিফিলিসে আক্রান্ত ৩৯৯ জন এবং ২০১ জন সুস্থ ব্যক্তি অংশ নেয়, যাদের সবাই ছিলো কৃষ্ণাঙ্গ। লোকগুলো তাদের অসুখ সম্পর্কে তেমন কিছুই জানতো না। তাদেরকে বলা হয়েছিলো তাদের রক্ত দূষিত হয়ে গিয়েছে এবং তাদের এ চিকিৎসা মাস ছয়েক সময়কাল ধরে চলবে। এ পরীক্ষায় যারা অংশ নিয়েছিলো তাদেরকে বিনামূল্যে খাদ্য ও চিকিৎসা সেবা এবং মৃতদেহের শেষকৃত্যানুষ্ঠানের ইন্স্যুরেন্সের নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছিলো।

মূলত পেনিসিলিনের কার্যকারিতা এবং অন্যান্য আরো পদ্ধতি নিয়েই পরীক্ষা চালানো হচ্ছিলো। ষাটের দশক থেকেই জনগণের মনে ক্ষোভ দানা বাঁধতে শুরু করে, অভিযোগ আসতে থাকে পরীক্ষকদের বিরুদ্ধে। অবশেষে ১৯৭২ সালে পিটার বাক্সটন নামক যুক্তরাষ্ট্রের পাবলিক হেলথ সার্ভিসের যৌনব্যাধি নিয়ে তদন্তকারী এক কর্মকর্তা এ বিষয়ে বিস্তারিত সংবাদ মাধ্যমের কাছে ফাঁস করে দিলে পরীক্ষার ইতি টানতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। ততদিনে ৬০০ জনের মাঝে বেঁচে ছিলো মাত্র ৭৪ জন, ৪০ জনের স্বামী/স্ত্রী সিফিলিসে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং ১৯টি শিশু এই রোগ নিয়েই জন্মগ্রহণ করেছিলো।