আজও নাকি এখানে দেখা মেলে রাধা-কৃষ্ণের! জেনে নিন রহস্যময় এই মন্দিরের কথা

0
65

এএনএম নিউজ ডেস্কঃ দেশের অনেক জায়গাতেই এমন অনেক মন্দির আছে, যার ছত্রে ছত্রে লুকিয়ে আছে রহস্য। তেমনই একটি বৃন্দাবনের নিধিবন মন্দির। মহাভারত অনুসারে এখানেই কেটেছিল শ্রীকৃষ্ণের ছেলেবেলা। এটি বাঁকে বিহারী মন্দির, মূরলীধর মন্দির এবং লীলাধর মন্দির নামেও পরিচিত।

নিধি-র অর্থ সম্পদ এবং চারপাশ জঙ্গলে ঘেরা তাই নাম রাখা হয়েছে নিধিবন। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল এই জঙ্গলের সব গাছের শাখাই নিম্নমূখী এবং গাছে শাখা প্রশাখাগুলি একে অন্যের সঙ্গে জড়িয়ে করে আছে। প্রচলিত বিশ্বাস অনুসারে এই গাছগুলি আসলে বাঁকে বিহারীর লীলা খেলার সঙ্গী গোপীনির দল। শ্রীকৃষ্ণকে শ্রদ্ধা জানিয়ে গাছের শাখা-প্রশাখা নীচের দিকে মুখ করে রয়েছে বলে মনে করা হয়।

আরও একটি আশ্চর্যের বিষয় হল এই মন্দির ও তার আশেপাশের এলাকা অত্যন্ত রুক্ষ। মন্দির চত্বরে একটি কুয়ো থাকলেও তাতে এক ফোঁটা জল নেই। মনে করা হয়, রাসলীলার সময় একদিন রাধা তৃষ্ণার্ত হয়ে পড়লে, তাঁর তৃষ্ণা মেটাতে খোদ শ্রীকৃষ্ণ এই কুয়োটি বাঁশি দিয়ে খনন করেন। গাছের গুঁড়িগুলোও সব ফাঁপা। কিন্তু এই সব গাছ সারা বছর সবুজে ভরে থাকে।

দিনের বেলা এই মন্দিরে পূণ্যার্থী ও পূজারীদের ভিড় থাকলেও রাত নামলেই নাকি বদলে যায় মন্দির এলাকা। বিকেলের পরই বন্ধ করে দেওয়া হয় মন্দিরের দরজা। মনে করা হয়, স্বয়ং বাঁকে বিহারী নাকি আজও এখানে রাইকিশোরী ও অন্য গোপীনিদের সঙ্গে লীলাখেলা করেন। মন্দিরের চারপাশ ঘিরে রাখা এই গাছগুলোই গোপীনিতে পরিবর্তিত হয়ে রাসলীলায় অংশ নেন।

এই মহারাসলীলা কাউকে চাক্ষুস করতে দেওয়া হয় না। কেউ যদি লুকিয়ে রাতে মন্দিরে থেকে যায়, তাহলে সকালবেলা তাঁদের মৃত, নয়তো পাগল অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বলেও প্রচলিত রয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি সন্ধের পর বন্ধ মন্দির থেকে ভেসে আসা ঘুঙুরের শব্দ অনেকেই শুনেছেন। ভেসে আসে বাঁশির সুরও। রাধা-কৃষ্ণকে সন্তুষ্ট করতে সন্ধ্যারতির পর পুরোহিতরা এখানে শাড়ি, মিষ্টি, চুড়ি, পান এই সব রেখে যান। সকালে সেই সবকিছু ছড়ানো-ছিটোনো অবস্থায় পাওয়া যায় বলে জানা যায়। অনেক ঐতিহাসিক ও বৈজ্ঞানিক এই মন্দিরের রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা করেছেন। এখানে কিছু একটা অস্বাভাবিক রয়েছে বলে মেনে নিয়েছেন তারাও।

আরো পোস্ট- http://anmnews.in/?p=170020 / https://anmnewsenglish.in/?p=10623

ANM NEWS WhatsApp Group| এখন দিনের টাটকা তাজা খবর আপনার হাতের কাছে পেতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন— https://chat.whatsapp.com/LnGqZu86Wei9CsNCSPuwBO