মিমের ভরসা আছে তৃণমূলের উপর, বাংলার নেই: দিলীপ ঘোষ

0
70

নিজস্ব সংবাদদাতা, মেদিনীপুর: সোমবার সন্ধেবেলায় মেদিনীপুর শহরের কেরানিতলায় হিন্দু যুব বাহিনী দ্বারা আয়োজিত জগদ্ধাত্রী পুজোর উদ্বোধন করতে আসেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বক্তব্যের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যাহ্নভোজনকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, “এক রান করে গিয়েছিলেন। বোধহয় কেউ ভাত খেতে দেয়নি”। তিনি বলেন, “অমিত শাহ বাঁকুড়াতে এসে খাটিয়াতে বসে ছিলেন এটা দেখেই মুখ্যমন্ত্রীও খাঁটি একে বসেছেন, দিনকয়েক বাদে তিনি মাটিতে বসবেন”।

মিম- তৃণমূল জোট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “মিম মনে করছে তাদের কাজটা তৃণমূল করে দেবে। তৃণমূল সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে। তাই মিম তৃণমূলের হাত ধরেছে। মমতা ব্যানার্জি বলেছেন কেউ টাকা দিতে এলে নিয়ে নাও, ভোট দিওনা”। এ প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেন, “মমতা ব্যানার্জি সবসময় টাকা টাকা করেন। তাই টাকার কথাই বলেছেন তিনি। অথচ কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষক সম্মাননিধি প্রকল্পের ৬হাজার টাকা তিনি মানুষকে পেতে দিচ্ছেন না। আয়ুষ্মান প্রকল্পের ৫লক্ষ টাকার সুবিধা পেতে দিচ্ছেন না”।

প্ৰধানমন্ত্রীর সঙ্গে মমতা ব্যানার্জির করোনা টিকা সংক্রান্ত বৈঠকের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “কেন্দ্র টাকা দিচ্ছে করোনার টিকার জন্য। সাগরদত্ত মেডিকেল কলেজে টিকাকরণের কথা থাকলেও মমতা ব্যানার্জি নাম পাঠাতে পারেননি। সারা দেশের মানুষ টিকা পাবে কিন্তু বাংলার মানুষ পাবেন না। তাঁদের জীবনের ঝুঁকি কিসের জন্য, কার জন্য? মমতা ব্যানার্জি কি চান না বাংলার মানুষ সুস্থ থাকুন?”

অন্যদিকে সোমবারই তৃণমূলের তিন হেভিওয়েট নেতাকে নোটিশ পাঠিয়েছেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এ বিষয়ে রাজ্য বিজেপির সভাপতি বলেন, “ইডির নোটিশ আগেও এসেছে পরেও আসবে, মানুষ দেখেছে টাকা নিতে। এর জবাব দিতে হবে সাধারণ মানুষকে”। সবশেষে তিনি বলেন, “আদর্শের জোরে লড়ে ভারতীয় জনতা পার্টি। কর্মীদের মনোবল নিয়ে ২০২১ এ ক্ষমতায় আসবে বিজেপি সরকার”।

এছাড়াও তিনি মুখ খুলেছেন একাধিক বিষয়ে। “খান টাইটেলড থাকার জন্যই বাংলার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে বাছা হয়েছে শাহরুখ খানকে, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে করা হয়নি”- ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর নির্বাচন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমরা জঙ্গলমহলের পান্তা খাওয়া মানুষ”। মুখ্যমন্ত্রীর ‘অগ্নিকন্যা’ ইমেজ নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি রাজ্য বিজেপির এই দাপুটে নেতা। তিনি বলেন, “উনি কন্যা কোথায় উনি এখন ঠাকুমা”। সরাসরি মিথ্যাবাদী অপবাদ দিয়ে তিনি বলেন। “জগদ্ধাত্রী পুজোর গ্রেইন মুখ্যমন্ত্রীর মিথ্যে কথা না বললেও পারতেন”। ২০২১ এর নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গের মানুষ তৃণমূল সরকারকে প্রত্যাখ্যান করে বিজেপিকে ক্ষমতায় নিয়ে আসবে বলেও আশাবাদী তিনি।






আরো পোস্ট-https://anmnews.in/?p=142613

https://anmnews.in/?p=142584