আধার সেন্টার খুলে চলছিল প্রতারণা চক্র

0
164

দিগ্বিজয় মাহালি, পশ্চিম মেদিনীপুর: মোটা টাকার বিনিময়ে আধার সেন্টার খুলে চলছিল নতুন কার্ড তৈরি ও সংশোধনের কাজ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে প্রতারণা চক্র ফাঁস করলো পুলিশ। আটক এক মহিলা সহ ভিন জেলার পাঁচজন। আটক এক মহিলা নিজেকে বিধায়কের স্ত্রী বলে দাবি করে বাঁচার চেষ্টা করে। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড ইলামবাজার এলাকায় ওই ভুয়ো সেন্টারে হানা দেয় চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ, চন্দ্রকোনা ২ ব্লকের বিডিও সৌম্য ঘোষসহ প্রশাসনের আধিকারিকরা। পুলিশের কাছে অভিযোগ আসছিল যে ৫০০-৭০০ টাকার বিনিময়ে নতুন আধার কার্ড তৈরি ও সংশোধনের কাজ করা হচ্ছে ইলামবাজার এলাকার ওই সেন্টারে।

এদিন সিভিল ড্রেসে চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ হাজির হয়। সেন্টারে প্রাথমিক কথাবার্তায় অসঙ্গতি ধরা পড়লে একজনকে আটক করলে পরপর আরও চারজন পৌঁছে যান ওই সেন্টারে। তাদেরকেও আটক করে পুলিশ। কোনও নথি বা অনুমতি পত্র দেখাতে পারেনি ধৃতরা এমনটাই জানা যায়। ধৃতদের মধ্যে এক মহিলা নিজেকে জলঙ্গি বিধায়কের স্ত্রী পরিচয় দিয়ে পুলিশের জাল থেকে বাঁচার চেষ্টা করে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, একমাসেরও বেশি সময় ধরে ওই এলাকায় একটি বাড়িতে এমন প্রতারণা চক্রের জাল ফেঁদে বসেছিল মুর্শিদাবাদের এই পাঁচজন। টাকা দিলেই হাতের সামনে মিলছে নতুন আধার কার্ড। সেই সুযোগে প্রতিদিনই ওই ভুয়ো সেন্টারে ভিড় জমতো মানুষের। ইতিমধ্যে কেউ নতুন কার্ড পেয়েছে তো আবার কেউ নথিসহ আবেদনও করেছে। যদিও ওই কার্ড আসল না নকল বা আধার কার্ড তৈরির নামে তথ্য হাতানোর কোনও পরিকল্পনা ছিল কিনা এসবই খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু করেছে চন্দ্রকোনা থানার পুলিশ। তদন্তের খাতিরে ধৃতদের নাম পরিচয় গোপন রাখছে পুলিশ।





আরো পোস্ট-https://anmnews.in/?p=118860

https://anmnews.in/?p=118852

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here